ফিনল্যান্ডে উচ্চশিক্ষা

ফিনল্যান্ডে উচ্চশিক্ষা

ফিনল্যান্ড ইউরোপের বাল্টিক সাগরের উপকূলে অবস্থিত একটি ধনী রাষ্ট্র। প্রচুর হ্রদ থাকার কারণে ফিনীয়রা নিজেদের সুওমি ডাকে।যার অর্থ হ্রদ ও জলাভূমির দেশ।ফিনল্যান্ড একটি শীতপ্রধান রাষ্ট্র। দেশটির রাজধানী ও বৃহত্তম শহর হেলসিঙ্কি। ফিনল্যান্ডের মুদ্রা ইউরো এবং ভাষা ফিনীয় ও সুয়েডীয়।ফিনল্যান্ডের প্রতিবেশী রাষ্ট্র সুইডেন,নরওয়ে ও রাশিয়া। বিশ্বের সুখী দেশের তালিকায় ফিনল্যান্ডের অবস্থান শীর্ষে।

ফিনল্যান্ড এর উচ্চশিক্ষা ব্যবস্থা খুবই উন্নত।উচ্চশিক্ষার জন্য ফিনল্যান্ডে রয়েছে প্রচুর কলেজ,বিশ্ববিদ্যালয়, গবেষণা ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্র।এখান থেকে আপনি ব্যাচেলর, মাস্টার্স ও পিএইচডি করতে পারবেন। ফিনল্যান্ডের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো সাধারণত ৩ বছরের ব্যাচেলর ও ২ বছরের মাস্টার্স ডিগ্রি এবং ৫/৬ বছরের পিএইচডি ডিগ্রি অফার করে থাকে। ফিনল্যান্ডে উচ্চশিক্ষার জন্য রয়েছে ২৭ টি ফলিত বিজ্ঞান ও ১৬ টি সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয়। ফিনিশ কিংবা সুইডিশ ভাষায় পারদর্শী হলে পড়াশোনা ও চাকরির ক্ষেত্রে রয়েছে অবাদ সুযোগ। এখানকার বেশিরভাগ বিশ্ববিদ্যালয় এ তিনভাষায় (ইংরেজি, ফিনিশ আর সুইডিশ) পড়ানো হয়।

তবে বেশ কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি ভাষার কোর্স চালু রয়েছে।তাই আপনি কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদন এর পূর্বে যে ভাষায় পড়তে চান তার উপর ভিত্তি করে কোর্স নির্বাচন করুন। এপ্লাইড সাইন্সে অনেক ইংরেজি কোর্সের সুযোগ রয়েছে।অনার্স কোর্সের ভর্তির জন্য ভর্তি পরীক্ষায় বসতে হয়। মাস্টার্স কোর্সে শিক্ষার কোনো বয়সের কোনো বাধা নেই। তবে মাস্টার্স কোর্সে আবেদনের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে যেসকল তথ্য ও যোগ্যতা বর্ণিত থাকবে তা আপনার মাঝে থাকলেই হবে।

শিক্ষার মান ও গ্রহণযোগ্যতা:
এদেশের শিক্ষার মান বেশ ভালো ও বিশ্বজুড়ে রয়েছে গ্রহণযোগ্যতা। আপনি ইঞ্জিনিয়ারিং, বিজনেস ও আর্টস সহ বিভিন্ন বিষয়ে উচ্চশিক্ষা নিতে পারবেন।

ফিনল্যান্ডের সেরা কিছু বিশ্ববিদ্যালয় :
1/Aalto University.
2/University of Helsinki.
3/University of Lapland.
4/University of Oulu
5/University of Vaasa.
6/Tampere University of Technology.
7/University of Eastern Finland.
8/University of Turku.

স্নাতোক ডিগ্রির জন্য উল্লেখযোগ্য কিছু কোর্স/বিষয় :
নার্সিং, সামাজিক সেবা,তথ্যপ্রযুক্তি, জৈব রসায়ন ও রাসায়নিক জীববিজ্ঞান, তড়িৎ তথ্যপ্রযুক্তি, ফলিত গণিত পরিসংখ্যান, পরিবেশ প্রকৌশল, বানিজ্য তথ্য প্রযুক্তি, ভ্রমণ ও আতিথেয়তা ব্যবস্থাপনা, প্লাস্টিক প্রযুক্তি, আন্তর্জাতিক বাণিজ্য, শিল্পকলার ইতিহাস, সামাজিক গবেষণা পদ্ধতি, অর্থনীতি, রাষ্ট্র ও সমাজ, গণমাধ্যম ও বিশ্ব যোগাযোগ, সংবাদমাধ্যম অধ্যয়ন, আন্তর্জাতিক বাণিজ্যিক আইন, আন্তর্জাতিক গণআইন, মেডিকেল ফিজিক্স অ্যান্ড কেমেস্ট্রি, জনস্বাস্থ্য, প্যাথলজি, মহাকাশ গবেষণা, বায়োকেমেস্ট্রি, খাদ্যবিজ্ঞান, খাদ্য রসায়ন, জীব-প্রযুক্তি, জৈব তথ্যপ্রযুক্তি, বাস্তুবিদ্যা, পরিবেশবিজ্ঞান, জীববৈচিত্র্য, জৈব রসায়ন ও রাসায়নিক বিশ্নেষন।

আবেদন পদ্ধতি আবেদনের সময়সীমা :
বিশ্ববিদ্যালয়ভেদে আবেদনের সময়সীমা ভিন্ন হয়ে থাকে। তবে বেশিরভাগ বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হয় নভেম্বরের শেষ থেকে আর শেষ হয় জানুয়ারির মাঝামাঝি সময়ে। আবার কিছু বিশ্ববিদ্যালয় মার্চ অব্দি সময় দিয়ে থাকে।

আবেদনের যোগ্যতা:
একেক বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদনের যোগ্যতা ভিন্ন হয়ে থাকে। ফিনল্যান্ডের অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদন করতে নির্দিষ্ট পরিমান ফি পরিশোধ করতে হয়। তাই আবেদনের পূর্বে ওয়েবসাইট ঘেটে ফি এর পরিমান জেনে নিন।বাংলাদেশে ফিনল্যান্ডের কোনো এম্বেসি নেই তাই আবেদনের জন্য ভারতে যেতে হবে। মাস্টার্স ও পিএইচডি কোর্সে আবেদনের জন্য আইএলটিএস স্কোর নূন্যতম ৬.৫ এবং টোফেল স্কোর ৫৫০ থাকতে হবে।মাস্টার্সে আবেদনের জন্য ব্যাচেলর কোর্সে ৬০%-৭০% স্কোর থাকা ভালো। তবে কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ে আইএলটিএস স্কোর ছাড়াই আবেদন করা যায়।

আবেদন করতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র :
১/পাসপোর্ট।
২/একাডেমিক কাগজপত্র ও মার্কশিট এর ইংরেজি ভার্সন।
৩/সিভি।
৪/মোটিভেশন লেটার।
৫/রেকোমেন্ডেশন লেটার।
৬/ভাষাগত যোগ্যতা প্রমাণের কাগজপত্র।
৭/আইএলটিএস সনদ।
৮/পাসপোর্টের ফটোকপি।
অতিরিক্ত কাগজপত্র প্রয়োজন হলে ওয়েবসাইটে দেয়া থাকবে।আবেদন পূর্বে বিষয়টি লক্ষ্য রাখতে হবে।

টিউশন ফি:
কোর্স ও বিশ্ববিদ্যালয় ভেদে টিউশন ফি ভিন্নতর হয়ে থাকে।তবে টিউশন ফি ৮,০০০ থেকে ১০,০০০ ইউরো হয়ে থাকে।

স্কলারশিপ :
ফিনল্যান্ডের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো নানা ধরনের স্কলারশিপ দিয়ে থাকে। মূলত টিউশন ফি এর উপর। একাডেমিক ফলাফলের উপর ভিত্তি করে বিশ্ববিদ্যালয় আপনার টিউশন ফি (৫০%_১০০%) মওকুফ করে থাকে।

পার্টটাইম জব:
পার্টটাইম জবের সুবিধা রয়েছে।প্রতি সপ্তাহে ২৫ ঘন্টা কাজের সুযোগ পাবেন। তবে সবসময় পার্টটাইম কাজ পাওয়া যায় না।তাই এই টাকা দিয়ে টিউশন ফি দিতে পারবেন না।

আবাসন ব্যবস্থা ও খরচ:
ফিনল্যান্ডে ছাত্রছাত্রীদের থাকার জন্য স্টুডেন্ট বাসস্থান রয়েছে। যেখানে আপনি সিঙ্গেল কিংবা কারো সাথে শেয়ারে থাকতে পারবেন। এদেশে জীবনযাপন খরচ প্রায় ৩৪৫ থেকে ৪৫৫ ইয়রো।

স্থায়ী আবাসন:
পড়াশোনা শেষে আপনাকে জবের খোঁজার জন্য ভিসা দেয়া হবে।আপনি যদি নিজের বিষয়ভিত্তিক জব পেয়ে যান তাহলেই সে দেশে থাকতে পারবেন।৪ বছর চাকরি করার পর পিআর এর জন্য আবেদন করতে পারবেন।

Leave a Comment

error: Content is protected !!