কেন পড়বো সাংবাদিকতা ??

কেন পড়বো সাংবাদিকতা ??

Mass communication and Journalism

গণমাধ্যমের প্রসার বাড়ার সাথে সাথে এই সেক্টরটিতে দক্ষ মানুষের চাহিদাও বাড়ছে। এমন এক সময় ছিল যখন সাংবাদিকতা নিয়ে কেউ পড়াশোনা করতে চাইতো না। তবে দিন বদলের ফলে এখন এই বিষয়টি নিয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে বেশ আগ্রহ দেখা যাচ্ছে। উচ্চ মাধ্যমিকের পর শিক্ষার্থীদের একটি উল্লেখযোগ্য অংশ এখন সাংবাদিকতা নিয়ে পড়তে চাই। পেশার সঙ্গে সরাসরি সংশ্লিষ্ট বলে এ বিষয়টি অনেকেই বেছে নিতে চাচ্ছে। গণমাধ্যমগুলোতে নিজেদের উপস্থিতি তুলে ধরে নিজেদেরকে সাংবাদিক হিসেবে দেখতে চাইলে বর্তমানে এই বিষয়টির আলাদা গুরুত্বই রয়েছে।

 

Mass Communication and Journalism বা বাংলায় যা আমাদের কাছে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা নামে পরিচিত, বর্তমানে বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে দারুণ একটি একাডেমিক সাবজেক্ট। আমাদের দেশে গণমাধ্যমগুলোর প্রসার ব্যাপক হারে ঘটছে। এখন টিভি খুললেই ১০০ এর বেশি দেশি চ্যানেল আমাদের চোখে পড়ে যেখানে আমরা প্রতিনিয়ত দেশ বিদেশের নানা খবরাখবর দেখতে পাচ্ছি। তাছাড়া সোশ্যাল মিডিয়ার বিকাশে এখন অহরহ নিউজ পোর্টাল দেখা যায়। সংবাদপত্র এখন আধুনিক হয়ে অনলাইন থেকেই পড়ে ফেলা যায়। এই যে এক বিস্তৃত কর্মস্থলের সৃষ্টি হচ্ছে সেখানে প্রয়োজন দক্ষ লোকের। জার্নালিজম পড়ে যে সবাই সাংবাদিক হবে ব্যাপারটা এমন না। সাংবাদিকতা একটি মুক্ত পেশা। আপনি গণমাধ্যমের যেকোনো সেক্টরেই জার্নালিজম নিয়ে পড়া শেষ করে ক্যারিয়ার গড়তে পারেন। 

 

সাংবাদিকতা বিষয়ে পড়াশোনাকে একসময় তেমন মূল্যায়ন করা হতো না। বর্তমানে প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে বাড়ছে প্রচুর কাজের ক্ষেত্র সৃষ্টি হচ্ছে ফলে এ বিষয়ে পড়তে আগ্রহী হচ্ছে শিক্ষার্থীরা। সাংবাদিকতা বিভাগের ছাত্রছাত্রীরা এখন শুধু গণমাধ্যমে নয়, বিভিন্ন এনজিও, সরকারি প্রতিষ্ঠান ও করপোরেট প্রতিষ্ঠানে যোগ্যতার সঙ্গে কাজ করছে। সাংবাদিকতা বিষয়টিতে যা পড়ানো হবে সবই মিডিয়া, কমিউনিকেশন, রাইটিং কিংবা এই জার্নালিজম সম্পর্কে। এগুলো সবই প্র‍্যাকটিক্যাল বিষয়। এখানে পড়তে হলে সবগুলো বিষয় সম্পর্কেই ধারণা থাকতে হবে আর নিয়মিত চর্চা করতে হবে। কথায় বলে সাংবাদিকতা হচ্ছে নিয়মিত চর্চার বিষয়। এখানে আপনাকে বিজ্ঞান, ব্যবসা কিংবা মানবিক শাখার কোনো ধরাবাধা পড়াশোনা করতে হচ্ছে না। অনেকটা ফিল্ড ওয়ার্কের মতো আপনাকে দেখে দেখে, থেকে থেকে, নিয়মিত চর্চার মাধ্যমে শিখতে হবে। 

 

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা পড়ে আপনি বিভিন্ন শাখায় ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ পাচ্ছেন। বহুমুখী একটি বিষয় নিয়ে পড়াশোনার অন্যতম সুবিধা হচ্ছে কোনো নির্দিষ্ট সেক্টরে ক্যারিয়ার শুরু করতে হয় না। যে কোর্স আপনার বেশি ভালো লাগে বা যে সেক্টর আপনার কাছে সহজ মনে হয় সেই সেক্টরেই আপনি ক্যারিয়ার গড়তে পারছেন। গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা নিয়ে পড়েও আপনি এরকম ভিন্ন ভিন্ন ফিল্ডে কাজ করতে পারেন। 

 

১. মিডিয়া ফিল্ডঃ গ্র‍্যাজুয়েশনের পর আপনি মিডিয়া ফিল্ডে থেকেই কাজ শুরু করতে পারেন। তবে এর জন্য ইন্টার্নশিপের প্রয়োজন হয়। তাই গ্র‍্যাজুয়েশন করার সময় যেখানেই সুযোগ পাবেন সেখানেই ইন্টার্নশিপ করে নিবেন। 

২. বিজ্ঞাপন সংস্থায় কাজঃ জার্নালিজম নিয়ে পড়াশোনা করে বিজ্ঞাপন সংস্থায় কাজের বেশ ভালো সুযোগ রয়েছে। বিজ্ঞাপন সংস্থায় মূলত এই বিষয় অভিজ্ঞ এবং ক্রিয়েটিভ লোকদের হায়ার করা হয়। 

৩. কন্টেন্ট রাইটারঃ জার্নালিজম পড়া শেষে আপনি চাইলে কন্টেন্ট রাইটারের কাজ করতে পারেন। সহজ কথায় বলতে গেলে নিউজ রাইটার হিসেবে ক্যারিয়ার গড়তে পারেন, তবে সেক্ষেত্রে অবশ্যই লেখালেখিতে ভালো দক্ষতা থাকতে হবে 

৪. পাবলিক রিলেশন ফিল্ডঃ গণযোগাযোগ ও জার্নালিজমে যারা পড়ে তাদের উল্লেখযোগ্য একটা অংশ পাবলিক রিলেশন অফিসার হিসেবে কাজ করে। আপনার কাজই হবে কেবল অন্যদের সাথে যোগাযোগ করা। মানুষের সাথে কথা বলা ও তাদের বোঝার দক্ষতার উপর নির্ভর করে এই ফিল্ডে কাজের সুযোগ হয়ে থাকে। 

 

আর তাছাড়া সরাসরি সাংবাদিকতার সাথে যুক্ত হওয়ার সুযোগ থাকছেই। আপনি চাইলে নিউজ প্রেজেন্টার হতে পারেন কিংবা নিউজ রিপোর্টারও হতে পারেন। আর তাছাড়া কমিউনিকেশন ডিপার্টমেন্টে, ম্যানেজমেন্ট ডিপার্টমেন্টের কাজ তো আছেই। 

বাংলাদেশে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকতায় পড়ার সুযোগ রয়েছে।এছাড়া ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ, AIUB , স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটি, ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি  বাংলাদেশ, ডেফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, ইউনিভার্সিটি অব ডেভেলপমেন্ট অলটারনেটিভসহ বেশ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে চাইলে সাংবাদিকত নিয়ে পড়াশোনা করতে পারেন। আর তাছাড়া বিভিন্ন সরকারি সংস্থা থেকে সাংবাদিকতা নিয়ে অনেক ডিপ্লোমা কোর্স করা যায়। 

 

আর উচ্চশিক্ষার জন্য হাতেগোনা কিছু স্কলারশিপ রয়েছে। সাংবাদিকতায় উচ্চশিক্ষার জন্য শুধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এরকম একটি কোর্স চালু রয়েছে যেখানে শিক্ষার্থীরা নরওয়ে, নেপাল ও পাকিস্তানে স্কলারশিপ নিয়ে পড়ার সুযোগ পান। সাংবাদিকতায় ক্যারিয়ার গড়ে আপনার স্যালারি পুরোপুরি আপনার উপর নির্ভর করছে। আপনি কোন সেক্টরে কি পদে কাজ করছেন তার উপর নির্ভর করে আপনার স্যালারি একেকরকম হবে। তবে সাংবাদিকতায় নিউজ রিপোর্টার এবং নিউজ প্রেজেন্টার সবচেয়ে উচ্চ মূল্যের স্যালারি পেয়ে থাকে। 

 

Leave a Comment

error: Content is protected !!